এবার তরুণদের ফেরাতে তৎপর ফেসবুক কতৃ্পক্ষ


বর্তমানে তরুণেরা ফেসবুকে বিমুখ। সেই জায়গায় এখন বুড়োদের জায়গা। কিন্তু এক সময় ফেসবুক তরুণদের আকর্ষণ করত সবচেয়ে বেশি।এক সমীক্ষায় ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বিষয়টি ধরতে পেরেছে। তাই তারা ফেসবুকে তরুণদের ফেরাতে চাইছে। এই উদ্দেশে গত সপ্তাহে ফেসবুকে তরুণদের উপযোগী বিষয়ক নানা ফিচার যুক্ত করতে উদ্যোগের কথা জানিয়েছে বিশ্বের শীর্ষ সামাজিক যোগাযোগের এই সাইটটি। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ বলছে, ফেসবুকের ফিচার তৈরির টিমটিকে পুনর্গঠন করেছে তারা।বার্তা সংস্থা এএফপিকে ফেসবুক বলেছে, ফেসবুকের যুবদল বা ইয়ুথটিমকে ব্যবসার অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্পগুলোর সঙ্গে যুক্ত করা হয়েছে। ফেসবুক মেসেঞ্জার কিডজ বিভাগে বিনিয়োগ বাড়ানোর কথাও জানিয়েছে।এর আগে ২০১৭ সালের ডিসেম্বরে শিশু কিশোরদের উপযোগী করে মেসেঞ্জার অ্যাপ্লিকেশনের একটি সংস্করণ চালু করে ফেসবুক। ওই অ্যাপ্লিকেশনে বাবা মার তত্ত্বাবধানে শিশু কিশোরেরা পরস্পরের সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারে। ওই অ্যাপে কেনাকাটা করার কোনো সুযোগ নেই।ওই অ্যাপটি যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, পেরু ও থাইল্যান্ডে চালু করা হয়। সেখানে অনেক শিশু বাবা মায়ের নজরদারির বাইরে অনলাইনে যায়।অ্যাপের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে পণ্য ব্যবস্থাপক দলের প্রধান জেনিফার বিলোক বলেন, শিশুদের জন্য ভিডিও ও মেসেজিং অ্যাপ দরকার ছিল, যাতে মা–বাবার পুরো নিয়ন্ত্রণ থাকবে। এ জন্য অনেক দেশে গোলটেবিল করে মতামত নেওয়া হয়।ফেসবুকের নিয়ম অনুযায়ী, ১৩ বছরের কমে কেউ অ্যাকাউন্ট করতে পারবে না।যুক্তরাষ্ট্রে শিশু কিশোরদের মধ্যে ছবি ও ভিডিওর অ্যাপ স্ন্যাপচ্যাট বেশি জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। ফেসবুক তাই তরুণদের ধরতে নানা ফিচার নিয়ে কাজ শুরু করেছে।

Have any Question or Comment?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: