অ্যান্ড্রয়েড ফোন কী খুব স্লো ?এই ১০টি উপায়ে আপনার মোবাইলের গতি বৃদ্ধি করুন সহজেই


  • যদি আপনি একটি নতুন স্মার্টফোনের পেছনে হাজার হাজার টাকা বিনিয়োগ করতে পারেন তবে এটি দীর্ঘ সময় স্থায়ী হবে বলে আশা করতেই পারেন। তবে দুর্ভাগ্যবশত, অতি ক্ষুদ্র কারণের আপনার ফো্নের গতি কমে যাওয়ার মতো অনেক কারণ আছে যা হয়তো আপনি নিজেও জানেন না।
  • আপনি যদি মনে করেন আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি স্লো এবং কাজ করতে অসুবিধা হয় তবে নিম্নলিখিত প্রক্রিয়া দ্বারা চেষ্টা করতে পারেন।
  • প্রথমত, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন রিস্টার্ট করুন-প্রথমেই আপনার অ্যান্ড্রয়েড  ফোনে অন্য কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করার আগে, শাট ডাউন করুন অথবা আপনার অ্যান্ড্রয়েড  ফোন পুনরায় আরম্ভ করার চেষ্টা করুন।
  • আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন-এর সিস্টেমের আপডেট নিশ্চিত করুন-অ্যান্ড্রয়েড ফোন যদি স্লো হয়ে যায় তবে সম্ভবত আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে আপনি সর্বশেষ আপডেট অ্যানড্রয়েড সফ্টওয়্যার ইনস্টল করতে ভুলে গেছেন বা এটা সর্বশেষ আপডেট অ্যানড্রয়েড সফ্টওয়্যার ইনস্টল করা হয়নি।
  • কোনো আপডেট আছে কিনা দেখতে আপনার ডিভাইসের Settings >About device >Software update এ যেয়ে একবার দেখে নিন।
  • প্রয়োজন হবে না এমন পুরাতন ফটো, অ্যাপ এবং ভিডিও বা অন্য সবকিছু মুছে দিন-এরপরও যদি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন ধীরগতির হয় তাহলে প্রয়োজন হবে না এমন ফাইল মুছে ফেলুন। পুরানো ছবি এবং মিউজিক ফাইল মুছে ফেলতে ভুলে যাওয়াটাই স্বাভাবিক তবে আপনার ফোনের আবার চলমান গতি ফিরে পেতে এটা একটা গুরুত্বপূর্ণ পদক্ষেপ।
  • এছাড়া বিভিন্ন অ্যাপসের কারণে কমে যেতে পারে আপনারঅ্যান্ড্রয়েড ফোনের গতি কেননা অনেক অ্যাপস অনেক সময় আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের বেকগ্রাউন্ডে চলতে থাকে যা স্লো করে দিতে পারে আপনার অ্যান্ড্রয়েড  ফোনের গতিকে।
  • এছাড়াও অনেক অপ্রয়োজনীয় অ্যাপ আপনার অ্যান্ড্রয়েড  ফোনের অনেকটুকু জায়গা দখল করে তাই এসব অপ্রয়োজনীয় অ্যাপস মুছে ফেলাই ভালো।
  • অ্যাপ্লিকেশন ক্যাশে সাফ করুন আপনার ফোন কখনও কখনও একটি অ্যাপ্লিকেশনের সাথে যুক্ত ছবি ও টুকরো তথ্য সংরক্ষণ করে রাখে যাতে এটা আপনাকে ঐ অ্যাপ্লিকেশন ওপেন করার সময় বার বার ডাউনলোড করতে না হয়। এটা সাধারণত একটা ইতিবাচক বৈশিষ্ট্য কিন্তু এতেও আপনার ফোন স্লো হয়ে যায়।
  • তাই আপনার যদি মনে হয় আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন ধীরগতির হয়ে গিয়েছে তবে এসব ছবি ও টুকরো তথ্য ডিলিট করে দিন। Settings > Storage > Cached data তে যেয়ে ক্লিয়ার করুন আপনার অ্যাপ্লিকেশন ক্যাশে।
  • কাস্টম রম ইনস্টল করার চেষ্টা করুন-আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি যদি একটি পুরোনো অ্যান্ড্রয়েড ফোন হয় যা নতুন আপডেট নেওয়ার উপযোগী নয় তবে আপনার ফোনে একটি কাস্টম রম ইনস্টল করুন যা সাম্প্রতিক সফ্টওয়্যার চালানোর অনুমতি দিবে এবং সেই সাথে এটি আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের বর্তমান পারফরম্যান্স মন্দ হলে তা দ্রুত রান করতেও খুবই সহায়তা করবে।
  • আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন –এর ক্রোম ব্রাউজার সমস্যার সমাধান-আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ক্রোম ব্রাউজার যদি স্লো হয়ে থাকে তবে এই সমস্যা ঠিক করার জন্য একটি উপায় অবশ্য আছে।
  • আপনার ফোনের ক্রোম ব্রাউজার দ্রুত করতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনের বেশী মেমরি ব্যবহার করার অনুমতি দিতে পারেন। এর জন্য শুধু ক্রোম খুলুন একটি নতুন ট্যাব আরম্ভ করুন এবং URL বারে নিম্নলিখিত কমান্ড টাইপ করুন: chrome://flags/#max-tiles-for-interest-area এখন একটি মেন্যু আসবে যাতে আপনি কতটুকু মেমোরি ব্যবহার করতে চান তা পরিবর্তন করতে পারেবন এখন ডিফল্ট “128” এর জায়গায় “512” নির্বাচন করুন।
  • প্রসেসিং ক্ষমতা বেশী ব্যবহার করে এমন অ্যাপ্লিকেশনের ব্যাপারে খেয়াল রাখুন প্রায় সময়, আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে বিভিন্ন অ্যাপ্লিকেশন থেকে পাওয়া অদ্ভুত বাগ বা বিষয় দেখতে পারেন। আসলে কোন অ্যাপ্লিকেশনের কারণে এমনটা হয় তা বলা কঠিন।
  • যদি মনে হয় আপনার ডিভাইসে এমনটা ঘটছে তবে Watchdog Task Manager অ্যাপটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। এই অ্যাপ আপনার ফোনের প্রতিটি অ্যাপ কি পরিমাণ কম্পিউটার শক্তি ও রিসোর্স ব্যবহার করে তা মনিটর করে জানাতে সাহায্য করে।
  • অ্যানিমেশন বন্ধ করুন আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোন দ্রুতগতির করতে অ্যানিমেশন ব্যবহার বন্ধ করুন।
  • অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম অ্যানিমেশন থেকে পরিত্রাণ পেতে আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে একটি সম্পূর্ণ নতুন সেটিংস মেনু আনলক করতে পারেন। Settings > About phone এ যেয়ে নিচে স্ক্রোল করে Build Number এ ঠিক সাত বার ট্যাপ করুন এই কাজ করার পরে, আপনি ফোনের সিস্টেম সেটিংসে একটি “ডেভেলপার অপশন” মেনুর অ্যাক্সেস পাবেন। এই মেনুতে আপনি উইন্ডো অ্যানিমেশন স্কেল, অ্যানিমেশন পরিবর্তন স্কেল, এবং অ্যানিমেশন সময়কাল স্কেল পাবেন প্রতিটি ট্যাপ করে .5x এ সেট করুন বা বন্ধ করে দিন।
  • আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনে ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা নিষ্ক্রিয় করুন ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা ব্যবহার করা আপনার ফোন ধীরে চলার একটি অন্যতম কারণ হতে পারে।
  • এটি ব্যবহার সীমিত বা বন্ধ করলে আপনারঅ্যান্ড্রয়েড  ফোনের গতি শুধু বাড়াবেই না বরং এটি আপনার প্রতি মাসে ডেটা ব্যবহার কমাতে সাহায্য করতে পারে। কোন অ্যাপগুলো ব্যাকগ্রাউন্ড ডেটা ব্যবহার করে তা দেখতে Settings থেকে Data Usage এ গিয়ে দেখতে পারবেন।
  • অন্য সব ব্যর্থ হলে, একটি ফ্যাক্টরি রিসেটের চেষ্টা করুন আপনার অ্যান্ড্রয়েড  অসহনীয়রূপে ধীরগতির হয়ে গেলে, একটি ফ্যাক্টরি রিসেটের চেষ্টা করুন।
  • এটি আপনার তথ্য, অ্যাপ্লিকেশন, ফটো, মিউজিক সব নিশ্চিহ্ন করে ফেলবে তাই সবকিছুর ব্যাকআপ রাখুন। একটি ফ্যাক্টরি রিসেট মূলত আপনার অ্যান্ড্রয়েড ফোনটিকে সেই অবস্থায় নিয়ে যাবে যা অ্যান্ড্রয়েড ফোনটি কেনার সময় ছিল। এর জন্য Settings >Backup থেকে reset>Factory reset এ গিয়ে রিসেট করুন।

Have any Question or Comment?

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: